আগুন বরফের লড়াইয়ে কে এগিয়ে?

0
1570

লক্ষ্য যদিও এক কিন্তু রাস্তাটা ভিন্ন। একদিকে আগুন তো অন্যদিকে বরফ কেমন হবে আল্টিমেট টেস্টের লড়াই? এমন চিন্তা ভাবনা হিসেব নিকেশ নিয়ে জল্পনা কল্পনার কোন শেষ ছিল না ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মাঝে।

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়ানশিপের প্রথম ফাইনালের নাম দিয়েছিল, দ্যা আল্টিমেট টেস্ট, রিজার্ভ ডে রেখেও বেরসিক বৃষ্টির জন্য যা মীমাংসা হওয়ায় প্রায় অসম্ভব। প্রথম দিন টস না হওয়াতে মনে হচ্ছিল পাঁচ দিনের টেস্ট হওয়া ই ভালো ছিল। কিন্তু চর্তুথ দিনে এসে ও একটা বলও গড়াতে পারলো না মাঠে।

টেস্টের রেজাল্ট হওয়া এখন যেমন কঠিন তেমনি কঠিন আল্টিমেট টেস্টের আগুন বরফের লড়াইয়ের মীমাংসা হওয়া আপাতত স্কোরলাইন আগুন- ৪৪, এবং বরফ- ১২।

যতটুকু পর্যন্ত খেলা মাঠে গড়িয়েছে তা আপনি যদি লক্ষ্য করে থাকেন খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে আগুন এবং বরফের উপমায় যথাক্রমে ভিরাট কোহলি এবং কেন উইলিয়ামস কে বোঝানো হয়েছে।

ব্যাটিং এর মতো ব্যক্তিত্ব ও চরিত্রে ও দুই দলের দুই অধিনায়ক যেন ঠিক যেন দুই মেরুতে। তাদের ব্যাক্তিত্ব ও আচরণের মধ্যেই তাদের দেশের প্রতিবিম্ব ফুটে ওঠে এবং আপনি তাদের দেশের ক্রিকেটকে ও এর সাথে তুলনা করতে পারেন।

শুধু ব্যক্তিত্বেই শেষ হচ্ছে না ফাইনালে দুইটি দেশকে বোঝাতেও দুই দলের অধিনায়ক আশ্চর্য রকম ভুমিকা রাখছেন। কোহলির মধ্যেই যেনো ভারত ফুটে ওঠে আর উইলিয়ামস এর মধ্যেই ফুটে ওঠে নিউজিল্যান্ড।

কোলাহল, উওেজনা,আবেগ, রসিকতা এই জাতীয় শব্দ বললেই যেমন ভারতকে বোঝাতে পারবেন তেমনি বিরাট কোহলি কে ও বোঝাতে পারবেন।

শান্তি, নিরবতা, নির্বোধ, নিরুদ্বেগ এই শব্দ গুলো দিয়ে আপনি যেমন নিউজিল্যান্ডে কে বোঝাতে পারবেন তেমনি কেন উইলিয়ামস কে ও।

ভারতের ক্রিকেট অনেক দিন আগেই খেলার মাঠের সীমানা ছাড়িয়ে এক উম্নাদনার নাম। ক্রিকেটাররা একেকজন তারকা। তারা খেলার গন্ডি পেরিয়ে পরিণত ডেমি গড এ, এমনই যে ক্রিকেটের নতুন সংজ্ঞা হিসেবে বহুদিন আগে চালু হয়েছে কথাটা, ‘ক্রিকেট ইজ আ্যন ইন্ডিয়ান গেম আ্যক্সিডেন্টালি ইনভেনটেড বাই দ্যা ইংলিশ।’

নিউজিল্যান্ডে ও খেলোয়াড় রা ডেমি গড হিসেবে পরিচিত হন তবে শর্ত একটাই তাকে অল ব্ল্যাকস এর হয়ে খেলতে হবে শুধু ব্ল্যাক ক্যাপস এর হয়ে নয়।

ভারতীয় ক্রিকেট জনপ্রিয়তা ও অর্থবলে বলীয়ান হয়ে কখনো কখনো উদ্ধত ও আক্রমণাত্মক, ঠিক যেনো ভিরাট এর মতো। অপরদিকে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট সৌম্য, শান্ত, নির্বোধ, ঠিক যেনো উইলিয়ামস এর মতো।

সবকিছু ছাপিয়ে বাইশ গজের খেলা ক্রিকেট এবং এর পাশাপাশি চরম গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা‌ এটা সর্বজন স্বিকৃত। টেস্ট ক্রিকেটের প্রতটি সেশনে এর রং বদলায়। ইতিমধ্যে চার দিনের খেলা শেষ। বৃষ্টির কারনে একদিন অতিরিক্ত রিজার্ভ ডে সহ ৬ দিন করা হয়েছে এই টেষ্ট। আগামী দুই দিনে টেস্টের ফলাফল পাওয়াটা সাধারণ সমীকরণে অসম্ভব। কিন্তু ওই যে বলা হয় ক্রিকেট গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা, যদি দুই দিন ঠিক মত বল মাঠে গড়ায় তাহলে ভিন্ন কিছু দেখলেও চমৎকৃত হয়তো হবেনা।

তাহলে আগুন ও বরফের সমীকরণে কে এগিয়ে থাকবে নাকি সমানে সমানে এটিই শেষ হবে‌! এই ফলাফল দেখার জন্য আমাদের অপেক্ষা করতে হবে আরও দুইটি দিন।