“আন্ডারসন-ব্রড জুটিকে কী আবারও একত্রে দেখা যাবে?”

0
1439

জেমস আন্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড, দুজনের ঝুলিতে ১০৭৮ টেস্ট উইকেট। টেস্ট ক্রিকেটে সেরা কয়েকটি টেস্ট বোলিং জুটির নাম আসলে এ দুজনের নাম আসবেই। এ দুজনই ইংল্যান্ডের হয়ে টপ উইকেট শিকারি। গতি-রিভার্স দিয়ে ঠাঁই করে নিয়েছে ক্রিকেট প্রেমীদের মনেও।

জেমস আন্ডারসন, ইতোমধ্যেই ৩৭ এর কোটা পার করেছেন। ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে খেললেও ছিলেন না দ্বিতীয় ম্যাচে।
স্টুয়ার্ড ব্রড, বয়সের কোটায় ৩৪ পার করা এ বোলার উইজডেন সিরেজের দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান যাকে প্রথম ম্যাচে থাকতে হয়েছিল দর্শকের ভূমিকায়।

জেমস আন্ডারসান বিশ্বাস করেন ইংল্যান্ড যদি তাদের সবচেয়ে শক্তিশালী বোলিং অ্যাটাক নির্বাচন করে তারা দুজনেই একাদশে থাকবেন, অবশ্য দুজনেরই ফিট থাকা সাপেক্ষে।

জেমস আন্ডারসন বলেন, “আমরা দু’জন একত্রে সব ম্যাচ খেলতে পারবো না তবে আমি এটা ভাবতে পছন্দ করি আমরা আরও অনেকগুলো ম্যাচ একত্রে খেলার সুযোগ পাবো”।

সর্বশেষ গরমের সিজনে ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভেগান পরামর্শ দিয়েছিলেন এই জুটিকে আর একত্রে না খেলাতে। তার পরামর্শ ছিল একজনকে রেস্ট দিয়ে দ্রুতগতির কেউ যেমন জোফরা আর্চার, মার্ক উড, অলি স্টোন এদেরকে পরবর্তী অ্যাশেজের জন্য প্রস্তুত করা।

ইংল্যান্ডের প্রধান কোচ ক্রিস সিলভারউড উইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনাল টেস্টে তার সবচেয়ে শক্তিশালী বোলিং অ্যাটাক নামানোর কথা বলেছেন। ‘রেস্ট এবং রোটেশন’ এর চিন্তা পাশে রেখে আন্ডারসন তাই আশাবাদী দুজনেই খেলবেন পরবর্তী টেস্ট ম্যাচেই।

আন্ডারসন ও ব্রড, দুজনের একত্রে একই ম্যাচে খেলার দিন গত হয়ে যাওয়ার প্রশ্নে আন্ডারসন বলেন, “আমি সত্যিই এমনটা আশা করিনা। আমাদের হয়ে রেকর্ডসই কথা বলবে”।

“ভবিষ্যৎ-এ এমন মুহূর্ত আসবে যেখানে আমরা দুজন আর একসাথে বোলিং করবো না, যা এই ইতোমধ্যেি সিরিজের মাধ্যমেই শুরু হয়ে গেছে। ‘ইঞ্জুরি এবং রেস্ট’ এর কারনে গত দুইবছর হতেই এটা প্রকৃতিকভাবে শুরু হয়েছে।”

“আমি এবং স্টুয়ার্ট, দুজনই কঠোর পরিশ্রম করছি এবং উইকেটও নিচ্ছি”।

“আমার লক্ষ্য বড় মঞ্চে(অ্যাশেজ),আমি চাই অস্ট্রেলিয়া সফরে দলের সঙ্গী হতে”

৩৮ ছুঁইছুঁই আন্ডারসন এ লক্ষ্যে বলেন, “আমি বল করে যেতে চাই এবং নিজের ফর্ম ধরে রাখতে চাই। এজন্য সর্বোচ্চ নিজের শরীরের দিকে লক্ষ্য রাখছি।”