এন্ডারসন তাঁর বোলিং এফোর্টের কারনে নিজের পাঁজরের হাড় ভেঙ্গে যায়!

0
1407

আপনার যদি কখনও চিন্তা আসে যে ইংলিশ সিমার জেমস অ্যান্ডারসন তার বোলিংয়ে কতটা নিজেকে উজার করে দেন তাহলে তার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরটি কীভাবে শেষ হয়েছিল তার দিকে একটু ফিরে তাকাতে হবে।

অ্যান্ডারসন কেপটাউন টেস্টের সময় তার পাঁজর ভেঙ্গে যায়। তিনি আঘাত সহ্য করার জন্য নয়, বড়ং তিনি বলিং করার জন্য তার শরীরকে জোর করে বাধ্য প্রচেষ্টাকে অবশ্যই বড় করে দেখতে হবে। ইংল্যান্ডের মেডিকেল দল জানিয়েছিল যে তারা এরকম আঘাত এর আগে আর কখনও দেখেনি।

যে সময় তিনি মাঠ ছেড়ে যান ব্যাথা তার সমস্ত মুখে স্পস্ট। দলকে জয় পাওয়ানর জন্য তিনি কষ্ট নিয়ে বলিং করে গেছেন। ঐৎম্যাচে তিনি ৩৭ ওভার বলিং করেছিলেন, একজন ৩৭ বছর বয়েসী বলারের জন্য এটি যথেষ্ঠ। এবং বলিং ফিগার ও তার দারুন ছিল ৭-৬৩। তিনি ১৯৫১ সালে ফ্রেডি ব্রাউন এর পর পাঁচ-উইকেট শিকারকারী তালিকায় ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বেশি বয়সী সিমার হয়েছিলেন।

এখন ৩৮ বছর বয়সে তিনি আবার পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন। এবং এটি টেস্ট ক্রিকেট ক্যারিয়ারে তার ২৯ তম।তার সামনে এখন শুধু মাত্র স্যার রিচার্ড হ্যাডলি রয়েছেন যিনি সব চেয়ে বেশি ৩৬ বার পাঁচ উইকেট নিয়েছেন।

৫৬ রানে ৫ উইকেট নেবার পর তার মাত্র ২ উইকেট দরকার ৬০০ উইকেটের দারপ্রান্তে পৌঁছনোর জন্য। সামনে দ্বিতীয় ইনিংস পরে আছে। তিনি যে ভাবে বলিং করছেন তাতে পাকিস্তান ব্যাটসম্যানদের আবহাওয়ার সাহায্য ছাড়া তাকে এড়ানর আর কোন পথ দেখা যাচ্ছে না।

তাঁর এই মাইলফলকে এতক্ষণে পৌঁছে যাবার কথা ছিল যদিনা গতকাল ১০ বলের ব্যবধানে ৩টি ক্যাচ ড্রপ হত। যদিও এর জন্যে বাজে আলোর দোষ তিনি দিতেই পারেন। আলোর কারনে গতকাল দ্বিতীয় ইনিংস শুরুই হয়নি।

কয়েক বছর আগেও কোন ক্যাচ ড্রপ হলে এন্ডারসনের প্রতিক্রিয়া ছিল ভিন্ন। তিনি আগে ক্রদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখাতেন, তাঁর জায়গায় অন্য যে কেউ হলেও একই রকম প্রতিক্রিয়া দেখাত। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে নিজেকে পরিবর্তন করে নিয়েছেন ক্যাচ মিস হবার পর তিনি কোন ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখেননি। নিজের বলিং মার্কে ফিরে গিয়েছেন পুনরায় সুযোগ তৈরি করার জন্য সচেষ্ট হয়েছেন। ২২ বল লেগেছে পরবর্তী সুযোগ আসতে এবং এর সাথে ইনিংস বিরতি হয় এবং তার ৫ উইকেট পাওয়া সম্পন্ন হয়।

ক্রিকেটের যুক্তি আমাদের বলে যে এন্ডারসনের সময় শীঘ্রই শেষ হবে। তিনি বর্তমানে ৩৮ এবং ইংল্যান্ডের পরবর্তী টেস্ট সফরগুলি শ্রীলঙ্কা এবং ভারতে। পরবর্তি অ্যাশেজ আবার শুরু হতে হতে তিনি ৩৯ বছর বয়সী হবেন এবং অস্ট্রেলিয়া নিঃসন্দেহে প্রবীণদের জন্য ভাল করার জায়গা নয়। সত্যিই, যে কোনও দিনই শেষ হতে পারে এন্ডারসন অধ্যায় সুতরাং যতক্ষন আআপনি তাকে দেখে নিতে পারছেন উপভোগ করুন।

একটা সময় তাঁকে শেষ করতেই হবে । তবে অ্যান্ডারসন কিছু সময়ের জন্য সব ক্রিকেটে যুক্তি এবং প্রত্যাশাকে মাথায় আনতে চান না। কেউ নিশ্চিত বলতে পারবে না যে তিনি ক্রিকেট আরো কিছুদিন চালিয়ে যাবেন না? তার আর ১০২টি উইকেট প্রয়োজন ৭০০ উইকেট এর লক্ষ্য মাত্রায় পৌঁছানোর জন্য।