ওয়েষ্ট-ইন্ডিজের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ৩০ জনের প্রাথমিক স্কোয়াড ঘোষণা।

0
1466

 

 

করনার প্রাদুর্ভাবে যখন গ্রাস করেছে সারা বিশ্ব সবকিছু যখন স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে এর প্রভাব এসে পড়েছে ক্রিকেট গায়েও। শেষ ক্রিকেট মাঠে গড়িয়েছে প্রায় দুই মাস আগে। ২০ মার্চ ২০২০ অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডের মধ‍্যকার ম‍্যাচ ছিল করনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এর পূর্বে সর্বশেষ ম‍্যাচ। এই ম‍্যাচে ছিল না কোন দর্শক। ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছে দর্শক শূন্য স্টেডিয়াম। যেখানে গ‍্যালারিতে বল কুড়িয়ে ফিরেছে খেলোয়াড়া নিজেই। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ক্রিকেট আবার মাঠে ফেরার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। ইংল্যান্ড ও ওয়েষ্ট- ইন্ডিজের মধ‍্যেকার টেষ্ট সিরিজ দিয়ে আগামী ৮ জুলাই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ক্রিকেট।

ইংল্যান্ড ইতিমধ‍্যে তাদের ৩০ জনের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে। যাদের মধ‍্যে রায়েছে ৮ জন অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা খেলোয়াড়। যারা আসলে প্রথম টেষ্টের পূর্ব পর্যন্ত খুব নিবীর তত্ত্বাবধায়নে প্রশিক্ষণ নিবেন।

তারা নিজেদের মধ‍্যে একটি তিন দিনের প্রস্তুতি মূলক ম‍্যাচ খেলবেন, যেটি ১লা জুলাইয়ে শুরু হতে যাচ্ছে। এদের মধ্যে থেকে প্রথম টেষ্টের স্কোয়াড নির্বাচিত হবে। ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের নির্বাচক ইডি স্মিথ ক্রিকেট মাঠে ফেরার ব‍্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী।

এক সংবাদ বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, “ইংল্যান্ডের ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট সবাই ক্রিকেট মাঠে ফেরার বিষয়ে যথেষ্ট আশাবাদী, এবং তারা খুবই খুশি যে ক্রিকেট মাঠে ফিরতে যাচ্ছে। স্কোয়াডে সবাই ওয়েষ্ট-ইন্ডিজের বিপক্ষে অনুষ্ঠিতব্য টেষ্ট ম‍্যচের ট্রেনিং ক‍্যাম্পে যোগদান করেছেন এবং তার অনুশীলন করছেন।”

ছবি: ড‍্যান লরেন্স অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা ইংলিশ ক্রিকেটার।ছবি: ড‍্যান লরেন্স অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা ইংলিশ ক্রিকেটার।

অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা যে ৮ জন খেলোয়াড় প্রশিক্ষণ শিবিরে যোগ দিয়েছেন তার হলেন – জেমস ব্র্যাসি, লুইস গ্রেগরি, ড্যান লরেন্স, সাকিব মাহমুদ, জেমি ওভারটন, ম্যাথু পার্কিনসন, অলি রবিনসন এবং আমার বিরদী। এই খেলোয়াড়ের মধ্যে পাঁচজন – ব্র্যাসি, লরেন্স, ওভারটন, রবিনসন এবং ভির্দি – এখনও কোনও ফরমেটে ইংল্যান্ডের হয়ে অভিষিক্ত হননি।

ইংল‍্যান্ড ক্রিকেট তাদের এই প্রাথমিক স্কয়াডের জন্য কোচিং স্টাফদের ও নিশ্চিত করেছেন যার দলকে কোচিং সহায়তা প্রদান করবে। ব্যাক-রুমের দলটিকে তিনজন কাউন্টি কোচ অনুশীলনে সহায়তায় প্রদান করবেন‌। ল্যাঙ্কাশায়ারের গ্লেন চ্যাপল বোলারদের সাথে কাজ করবেন, বছরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়া সফরে ইংল্যান্ড লায়ন্সকে প্রশিক্ষক করা গ্লৌচেস্টারশায়ার রিচার্ড ডসন স্পিন-বোলিং কোচের দায়িত্ব নেবেন এবং কেন্টের ম্যাথিউ ম্যাচ ওয়াকার ব্যাটিং কোচ গ্রাহাম থর্পে সহায়তা করবেন। ক্রিস সিলভারউড প্রধান কোচ হিসাবে থাকছেন, ইংল্যান্ডের প্রাক্তন উইকেট কিপার ক্রিস রিডকে উইকেট কিপিং পরামর্শদাতা এবং ইসিবি জাতীয় শীর্ষ ফিল্ডিং কোচ কার্ল হপকিনসন ফিল্ডিং কোচ হিসেবে থাকবেন।

ইসিবি পারফরম্যান্স ডিরেক্টর মো বোব্যাট বলেছেন, “বর্তমান অবস্থায় জলবায়ুর পরিস্থিতি যেভাবে দ্রুত অগ্রগতি পেয়েছে, এবং আমরা কাউন্টি’র কাছে খুবই কৃতজ্ঞ যে, তারা আমাদের টেষ্ট দলকে সমর্থন করার জন্য তাদের কোচদের দ্বারা আমাদের সহায়তা করেছে। খেলোয়াড়া অবশ্যই তাদের যথেষ্ট ব্যস্ত রাখবে।”

বোব‍্যাট আরো বলেন যে, “গ্লেন এবং রিচার্ড উভয়ই উইন্টার লায়নের সাথে সম্পৃক্ত ছিল, সুতরাং এটা খেলোয়াড় এবং তাদের মধ্যে খুব ভাল একটা কোচিং ক‍্যামিস্ট্রি তৈরিতে সহায়তা হবে। এবং এটা আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের জন‍্য খুব ভাল একটা দিক যে, আমরা আমাদের অনেকগুলো কোচদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সাথে সম্পৃক্ত করতে পেরেছি।”

সহকারী কোচ পল কলিংউড এই গ্রুপের সাথে থাকছেন না, তবে পরবর্তিতে বছরের শেষের দিকে ইংল্যান্ডের ওয়ানডে দলের দায়িত্বে থাকবেন যখন তারা আয়ারল্যান্ডের সাথে সম্ভাব্য তিন ম্যাচের সিরিজের জন্য আয়ারল্যান্ডকে আতিথেয়তা দেবে। যদিও ফিক্সার এখনও নিশ্চিত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে।

ইংলিশ স্কোয়াড: মইন আলী, জেমস অ্যান্ডারসন, জোফরা আরচার, জোনাথন বেয়ারস্টো, ডমিনিক বেস, জেমস ব্র্যাসি, স্টুয়ার্ট ব্রড, ররি বার্নস, জোস বাটলার, জাক ক্রোলি, স্যাম কুরান, জো ডেনেলি, বেন ফোকস, লুইস গ্রেগরি, কেটন জেনিংস, ড্যান লরেন্স, জ্যাক লিচ, সাকিব মাহমুদ, ক্রেইগ ওভারটন, জেমি ওভারটন, ম্যাথু পার্কিনসন, অলি পোপ, অলি রবিনসন, জো রুট, ডম সিবিলি, বেন স্টোকস, অলি স্টোন, আমার বিরদী, ক্রিস ওকস, মার্ক উড।

ক্রিকেট প্রেমিরা অধীর আগ্রহে বসে আছে কবে ক্রিকেট মাঠে ফিরে। পরিবর্তিত পরিবেশের সাথে ক্রিকেটাররা কতটা মানিয়ে নেয়। সবুজের গালিচায় আবারো ছুটে ফিরুক লাল বল। স্টেডিয়াম হোক আবারো জনাকীর্ণ। ভালাবাসার ক্রিকেটে আবারো রং ফিরে পাক।