ওয়েষ্ট-ইন্ডিজ দলের জন্য বিসিবির ভিন্ন বায়ো-বাবল পরিকল্পনা।

0
2237

ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের দুটি কোভিড -১৯ পরীক্ষা এবং হোটেলে তিন দিনের কোয়ারেনটাইনে থাকার পর প্রশিক্ষণের অনুমতি দেওয়া হবে।

রবিবার সকালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩৮ সদস্যের দল কোভিড- ১৯ শুরু হওয়ার পরে প্রথমবারের মতো কোন আন্তর্জাতিক দল বাংলাদেশে পৌঁছেছে।

সফরকারী ওয়ানডে দলে অংশ নেওয়া ফাস্ট বোলার রোমারিও শেফার্ড তাদের দেশ ছাড়ার আগে গায়ানায় কভিড পজিটিভ হবার পরে ইতোমধ্যে এই মহামারীর প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়েছে।

২৪ বছর বয়সী বার্বাডোস ফাস্ট বোলার কেইন হার্ডিংকে শেফার্ডের বদলি ঘোষণা করা হয়েছে এবং ১৫ সদস্যের ওয়ানডে স্কোয়াডে নবম খেলোয়াড় যারা অভিষেকের অপেক্ষায় রয়েছেন। মহামারীর কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের একাধিক প্রবীণ ক্রিকেটার ওয়ানডে ও টেস্ট উভয়ই স্কোয়াডে সাথে যোগ দেয়নি।

যারা রবিবার এসেছেন তাদের কোভিড -১৯ পরীক্ষা করা হবে, তারপরে তারা আবার পরীক্ষার আগে প্রথম তিন দিন তাদের হোটেল কক্ষে নিজেদেরকে বিচ্ছিন্ন রাখবেন। যদি তারা উভয় পরীক্ষায় নেগেটিভ আসে তবে তাদের চতুর্থ দিন থেকেই প্রশিক্ষণের অনুমতি দেওয়া হবে।

২০ জানুয়ারি প্রথম ওয়ানডে শুরু হওয়ার আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৮ জানুয়ারি সাভারের বিকেএসপি মাঠে এক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে।

সফরের সাত দিনের পর ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে একবার তৃতীয় দফায় কভিড টেস্ট করা হবে। বাংলাদেশ বোর্ড স্থানীয় নেট বোলারদেরও অন্যান্য পরিসেবা সরবরাহকারী ও গ্রাউন্ড স্টাফদের শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে অভ্যন্তরে বায়ো বাবলের মধ্যে থাকার ব‍্যবস্থা করবে। ২৩ শে জানুয়ারী তৃতীয় ওয়ানডেতে চ্যাটগ্রামে আসার পরে উভয় দলের পুনরায় পরীক্ষা করা হবে এবং পরের মাসের জন্য আবার টেস্ট সিরিজের আগে আরো একবার পরীক্ষা করা হবে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে জিম্বাবুয়ে সফর করার পর এই ওয়ানডে সিরিজ বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজ।