ক্রিকেট হকার নরসিংদী জোনের প্রথম জয়

0
1393

ক্রিকেট হকার নরসিংদী জোনের জন্য দারুন একটি দিন ছিল আজ। প্রতিপক্ষ ছিল দেশের অন্যতম সেরা ক্রিকেট কমিউনিটি “ক্রিকেখোর নরসিংদী”জোন। দলের সব খেলোয়াড় খুবই উচ্ছ্বসিত ছিল এই ম্যাচ নিয়ে।

মুদ্রা নিক্ষেপে ক্রিকেখোর জয়লাভ করে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। অধিনায়ক মুশফিকের সিদ্ধান্ত সঠিক প্রমান করে বোলাররা দারুন শুরু করে।

ক্রিকেট হকারের উদ্বধনী জুটিতে মাসুদ ও সোহেল বেশ ভাল শুরু করেলেও দলীয় ২৯ ও ব্যক্তিগত ১৯ রানে ক্রিকেটখোরের দলীয় অধিনায়ক মুশফিকের শিকারে পরিণত হয় মাসুদ। দলীয় ৪২ রানে অন্য ওপেনার সোহেল মাত্র ৩ রানে ফিরে যায় আকিবের বলে। দুই ওপেনার ফিরে গেলে ক্রিজে আসেন ৩ নং এ শাহিন ও ৪নং এ নামা সুজন। সুজন মাত্র ১১ রান করে দলীয় ৫৪ রানে সাজঘরে ফিরে গেলে কোনঠাসা হয়ে পরে ক্রিকেট হকার। দলীয় ৫৯ রানে নাইম তার রানের খাতা না খুলেই বিদায় নেয় এবং দলীয় ৬০ রানে ব্যাক্তিগত ১২ রান করে শাহিন ক্রিকেটখোরের রানার একই ওভারে আউট হয়ে যায়।

দলীয় স্কোর ৬০/৫ দারুন চাপে হকাররা সন্মানজনক স্কোর করাই যখন কঠিন মনে হচ্ছিল। তখন আল-আমিন ও শওকত দেখে শুনে খেলতে থাকেন। একটু পরই শুরু হয় আল-আমিন শো একের পর এক বল বাউন্ডারি ছারা করতে থাকেন। শওকত তাকে দরুন সাপোর্ট দেয়। ১১.৫ ওভারে দলীয় ১২৬ রানে শওকত রুমানের বলে আউট হয়ে ফিরে যায়। এর পর আল-আমিন বেশিক্ষন খেলতে পারেনি। আকিবের বলে আউট হবার পূর্বে ম্যাচ বাঁচানো ৬১রান করেন মাত্র ২৩ বলে। যার মধ্যে মাত্র ১ টি চার ও ৮ টি ছক্কার মার ছিলো। শেষ পর্যন্ত হকাররা সবকয়টি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংস শেষ করে ১৫৩ রানে। ক্রিকেটখোরের পক্ষে মুশফিক,আকিব, রানা ২টি করে উইকেট লাভ করে এবং রুমান ও মাহবুব ১টি করে উইকেট লাভ করে।

জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই চাপে পরে ক্রিকেটখোর। মুশফিক ও আবির ওপেন করতে নামে। ৪ রানের মাথায় আবিরের উইকেট তুলে নেয় আশিক। দ্বিতীয় আঘাত হানে আবার সেই আশিক দলীয় ১১ রানে ৩ নং এ নামা মোস্তাকের উইকেটটি তুলে নেয়। ৩১ রানে ৩য় আঘাত হানে সুজন ব্যক্তিগত ২ রানে তাকে ফিরিয়ে দেন তিনি। অপর পাশে এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলেছেন মুশফিক। ৫ নং এ নামা রাহাতকে ক্লিন বোল্ড করে সুজন। দলীয় অধিনায়ক মুশফিক রানের চাকা সচল রাখতে একপাশে থেকে দারুন খেলে যাচ্ছিলেন। সুজনের বলে আউট হবার আগে তিনি করেন ক্রিকেটখোরের ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৬ রান এবং তাতে বল খরচ করেন মাত্র ২১ টি। এর পরে ৮ নং এ নামা আকিব শুধুমাত্র ১৩ রান করেন আর সব ব্যাটসম্যানরা তেমন রান করতে পারেননি। ক্রিকেটখোর অলআউট হয় ৯৮ রানে। ক্রিকেট হকারের পক্ষে সুজন ৪ টি, আশিক ৩টি ও শাহীন ২টি উইকেট লাভ করেন।

এটি ক্রিকেট হকার নরসিংদী জোনের প্রথম জয় ছিল। জয় পরাজয় ছাপিয়ে ক্রিকেটখোর নরসিংদী জোনের সাথে দারুন বন্ধুত্বের সুসম্পর্ক তৈরি হয় এই ম্যাচের মাধ্যমে। ক্রিকেটখোরের নাম শুনে প্রচুর দর্শক সমাগম হয়েছিল তাদের খেলা উপভোগ করার জন্য। ক্রিকেট হকার তাদের আমন্ত্রনে সাড়া দিয়ে খেলতে আসার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে  ক্রিকেটখোর নরসিংদী জোনকে।