তীব্র সমালোচনার মুখে জাস্টিন ল্যাঙ্গার

0
366

মাঠের বাহিরে, কোথাও সময়টা ভালো যাচ্ছে না ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার। একের পর এক সিরিজ হারের পর মাঠের বাহিরের ঘটনা নিয়েও বিতর্কে পড়তে হয়েছে দলটিকে, এই বিতর্কের মুল কেন্দ্রে আছে অস্ট্রেলিয়ার হেড কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।

টানা ৫ টি-টোয়েন্টি সিরিজে হেরেছে অস্ট্রেলিয়া, তবে অস্ট্রেলিয়ার সম্মানে হানা দিয়েছে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে হারটা। টেস্ট কিংবা ওয়ানডেতেও নেই অজিদের চেনা সাফল্যও, দলের এই বাজে অবস্থার জন্য জাস্টিন ল্যাঙ্গারের কোচিংয়ের ধরণ নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে।

অস্ট্রেলিয়ান সংবাদ মাধ্যম গুলোতে ল্যাঙ্গারের যোগ্যতা নিয়েও প্রতিনিয়ত প্রশ্ন তোলা হচ্ছে, তবে জাস্টিন ল্যাঙ্গারের উপরেই আস্থা রাখছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। আগামী বছরের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত চুক্তি আছে সিএ ও ল্যাঙ্গারের, সে পর্যন্ত তার উপরেই ভরসা রাখতে চান ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিক হকলি।

২০১৮ সালে বল টেম্পারিং কলঙ্কের পর দায়িত্ব নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে মানুষের কাছে বিশ্বাস ফিরিয়েছেন উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে নিক হকলি বলেন, “২০১৮ সালে জাস্টিন অস্ট্রেলিয়ার দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে সংস্কৃতি, মূল্যবোধ এবং আচরণের উন্নতিতে অবিশ্বাস্য কাজ করেছেন। তার প্রয়াসে জাতীয় দলের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ফিরে এসেছে।”

ল্যাঙ্গারের অধীনে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া সুবিধা করতে না পারলেও নিক হকলির বিশ্বাস, তার অধীনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও অ্যাশেজে ভালো করবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। তিনি আরও বলেন, “সে আগামী বছরের মাঝামাঝি পর্যন্ত হেড কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ আছেন। এখন আমাদের মনোযোগ সফল একটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযানের দিকে, এরপর আছে ঘরের মাঠে অ্যাশেজ ধরে রাখার লড়াই।”

সাম্প্রতিক বাজে সময়ের জন্য মহামারি ও সব ক্রিকেটারকে না পাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে নিক হকলি বলেন, “মহামারির ১৮ মাস দলকে অনেক ভুগতে হয়েছে, চ্যালেঞ্জিং ছিল। এই সব চ্যালেঞ্জের পরও দলে যখন সব খেলোয়াড়কে পাওয়া গেছে, তখন দল ওয়ানডে, টেস্ট এবং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দারুণ সাফল্য পেয়েছে।”