পাকিস্তান নিউজিল্যান্ড সিরিজে ২৫% দর্শক প্রবেশের অনুমতি

0
290

পাকিস্তান নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য স্টেডিয়ামের ধারন ক্ষমতার ২৫% দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেবে।
শুধুমাত্র দর্শকরা যারা সম্পূর্ণ দুই ডোজ টিকা গ
গ্রহন করেছেন তারা রাওয়ালপিন্ডি এবং লাহোরে খেলা দেখায় অংশ নিতে পারবেন।
রাওয়ালপিন্ডিতে অনুষ্ঠিত তিনটি ওয়ানডেতে ৪৫০০ দর্শকের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে পাঁচটি টি -টোয়েন্টি ম্যাচে ৫৫০০ দর্শক প্রবেশের অনুমতি থাকবে।
“দর্শকরা যেকোনো খেলাধুলার মূল প্রান, কারণ তারা খেলোয়াড়দের উৎকর্ষ, পারফরম্যান্স এবং আনন্দ উপভোগ করার জন্য একটি পরিবেশ ও পরিস্থিতি তৈরি করে। “পিসিবি প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান এক বিবৃতিতে বলেছেন। “আমি নিশ্চিত যে এনসিওসির সিদ্ধান্তের পর, ক্রিকেট অনুরাগিরা তাদের টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করবে, যাতে তারা ২০০৪ সালের পর দুই দেশের মধ্যে প্রথম সিরিজ দেখতে পাবে।”
“এটি দর্শকদের জন্য একটি সুযোগ হবে যে তারা মৌসুমের উদ্বোধনী সিরিজে শুধু মাত্র দারুন কিছু ক্রিকেট উপভোগ করবে না বরং উভয় পক্ষের খেলোয়াড়দের উৎসাহ ও সমর্থন দেবে। কারণ আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০২৩ এ কোয়ালিফাই করার জন্য এই ওয়ানডে ম্যাচ গুলো বিবেচনা করা হবে। এবং টি-টোয়েন্টি ম্যাচ গুলো আইসিসি টি -টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রস্তুতির কাজে আসবে। ”
নিউজিল্যান্ড আগামী ১১ সেপ্টেম্বর ইসলামাবাদে পৌঁছাবে কারণ পাকিস্তান ঘরের মাঠে আরও বেশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের চেষ্টা করছে। প্রায় এক দশ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন থাকার পর, পাকিস্তান আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দলের সফরের একটি ধারা ধীরে ধীরে দেশে ফিরাতে চেষ্টা করেছে।
নিউজিল্যান্ডের সফল সফর পাকিস্তানকে আরও অনুপ্রেরণিত করবে। এরপর থেকে সব আন্তর্জাতিক ক্রিকেট যেন দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত হয় এই প্রত্যাশাও থাকবে। দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, জিম্বাবুয়ে এবং বিশ্ব একাদশ দলের সফর গত চার বছরে সফল ভাবে সম্পন্ন করেছে।
পিসিবি অস্ট্রেলিয়ার সাথে ও হোম সিরিজ আয়োজন করতে প্রস্তুত – ১৯৯৯ সালের পর থেকে অস্ট্রেলিয়া পাকিস্তানে কোন ম্যাচ খেলেনি। এছাড়া – ২০২৪-২০৩১ সালের মধ্যে আইসিসির ইভেন্ট আয়োজন করতে আগ্রহী পাকিস্তান।
অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন, ট্রেন্ট বোল্ট, কাইল জেমিসন এবং লকি ফার্গুসন সহ নিউজিল্যান্ডের প্রথম সারির বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় আইপিএল -এর সাথে খেলার কারণে এই সিরিজে থাকছে না। টম ল্যাথাম উইলিয়ামসনের অনুপস্থিতিতে দলের নেতৃত্ব দেবেন। সিরিজের জন্য পাকিস্তান এখনো তাদের দল ঘোষণা করেনি।
এই বছরের শুরুতে মার্চে পাকিস্তানে কোভিড – কেইস বৃদ্ধি এবং বায়ো-বাবল ভাঙ্গার কারণে দর্শক প্রবেশ বন্ধ করা হয় এবং পিএসএল লীগ আয়োজন পরিকল্পনা বাতিল করতে হয়েছিল। পাকিস্তানে করোনাভাইরাসের কেইস তুলনামূলকভাবে বেশি। দেশটিতে সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউ চলছে। যাইহোক, দেশটিতে টিকা দেওয়ার হার বৃদ্ধি পেয়েছে এবং প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্করা টিকা গ্রহণ করছে।