পিরোজপুর হকার্স কতৃক আয়জিত ক্রিক-ফেষ্টের সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন।

0
5189

ক্রিকেট হকার পিরোজপুর কর্তৃক আয়োজিত পিজিএইচএস ক্রিকফেষ্ট ২০২০ এর সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়ে গেল গতকাল। সমাপনী অনুষ্ঠানে খেলার পুরুস্কার বিতরণ ছাড়াও পিরোজপুরের ক্রিকেট অঙ্গনে বিভিন্ন সময়ে যারা অসাধারণ অবদান রেখেছেন তাদের সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। এবং পিরোজপুরের বিভিন্ন ক্রিড়া ক্ষেত্রে যারা পিরোজপুরের নাম উজ্জ্বল করেছেন তাদের সম্মাননা প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুরের সুযোগ্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বশির আহমেদ স্যার। তিনি একজন ক্রিড়া প্রেমী মানুষ। ক্রিকেট হকারের এই আয়োজনের ভুয়াসী  প্রশংসা করেন এবং সামনের ক্রিকেট হকারের এ ধরনের  যে কোন আয়োজনে তাঁর সমর্থন প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন, “করনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে তখন জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে তখন নির্মল আনন্দের খোরাক ক্রিকেট  হকার্স আয়োজন করেছে। অত্যন্ত ভাল লাগার বিষয় এখানে আপনারা সাবেকদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, কারন আমরা সাবেকদেরকে ভুলে যাই সহজে এটা একটা বাঙালি সংস্কৃতি রয়েছে। কিন্তু আপনারা সাবেকদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তার জন্য আবারও ধন্যবাদ জানাই। ক্রিকেটের সর্বশেষ সংস্করণ এই ‘টি-টেন’ যখন দেখছিলাম তখন জার্মানির হিটলারের কথা মনে পড়ে যায়। মনে পরার কারন হল তিনি যদি আজ বেঁচে থাকতেন তাহলে তিনিও আনন্দ পেতেন, কারন জার্মানিতে যখন টেষ্ট ম্যাচ হয়েছে ৫ দিন কিন্তু কেউ জিততে (ড্র হয়েছে) পারেনি এটা শুনে তিনি জার্মানিতে ক্রিকেট নিষিদ্ধ করে দেয় হিটলার। তাই হিটালার থাকলে দারুন আনন্দ পেত আজ আমিও দারুন আনন্দ  পেয়েছি। ক্রিকেটকে বলা হয় ভেরি ভেরি আনপ্রেডিকটেবল গেইম তার প্রতিফলন এই ম্যাচে আমরা দেখলাম।”

ফাইনালের উভয় দলকে তিনি অভিনন্দন জানান। অংশগ্রহণকারি দুই দল এবং দর্শকদের নিয়মিত খেলাধূলা ও শারীরিক কসরত করার জন্য তিনি আহ্বান জানান, কেননা শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকলে সবার ইমিউন শক্তি বাড়বে। সদর উপজেলার ক্রিড়া সংস্থার আয়োজনে এজাতীয় টুর্নামেন্ট আয়োজন করার আশ্বাস প্রদান করেন।

সাবেক ক্রিকেটারদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন আশিশ দাশ। তিনি অত্যন্ত আনন্দ প্রকাশ করেন তাদের সম্মাননা জানানোর জন্য। তিনি সবসময় ক্রিকেট হকার কে ফলো করেন এবং শুভকামনা জানান।ক্রিকেট হকারের এই আয়োজনকে সাধুবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুরের সাবেক খেলোয়াড় ও পিরোজপুর গোয়েন্দা পুলিশের  পরিদর্শক জনাব হাসনাইন পারভেজ। তিনি এই সম্মাননা প্রদানের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি আরো বলেন, ” আমি জানি না আমি এই সম্মাননার যোগ্য কিনা আমি ক্রিকেট হকার্সকে  ধন্যবাদ জানাই এই বৈশ্বিক করনা পরিস্থিতিতে সবাই হতাশাগ্রস্থ ও মনমরা অবস্থায় ছিল। এখান থেকে এই খেলায় আমি চরম আনন্দ পেয়েছি যা আমি গত দুই বছরে কোন খেলায় পাই নি। ক্রিকেটে গাণিতিক হিসাব সবসময় মেলে না এই জিনিস আমরা এই খেলায় দেখতে পেয়েছি। পিরোজপুরে আমার ছাত্র জীবন কেটেছে তাই পিরোজপুরের মাটি ও মানুষের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক। খেলাধুলার বিষয়ে আমার সবসময়ই উৎসাহ বেশি। আমি সবসময় ফুটবল ব্যাডমিন্টন এবং সময় পেলে ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করি।”

তিনি আরো জানান পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মহোদয় পিরোজপুরকে মাদকমুক্ত করার জন্য কর্মসূচি হাতে নিয়েছে তার অংশ হিসেবে পুলিশ কাজ করছে। তিনি তরুণ সমাজকে খেলাধুলা করার প্রতি আহ্বান জানান। পিরোজপুরের যুব সমাজ যে কোনো ধরনের আসক্তি যেমন ফেসবুক ইন্টারনেট এগুলো ভুলে মাঠে চলে আসবে এবং যুবসমাজকে উজ্জীবিত করে তুলবে।

তিনি সিনিয়রদের সম্মাননা জানানোর জন্য আবারও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এবং সামনে তৃণমূল পর্যায়ে এজাতীয় আয়োজন করার কথা বলেন। যাতে পিরোজপুর থেকে খেলোয়াড় উঠে আসে। তিনি সিনিয়রদের সম্মান প্রদর্শন করার বিষয়ে দেন। তিনি তাঁকে সম্মাননা প্রদর্শনের জন্য অভিভূত। ক্রিকেট হকারের সার্বিক সফলতা কামনা করেন।

যাদের ক্রিকেটে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়

১. মোঃ আলী আকবর আকন
২. মোঃ রফিকুল ইসলাম
৩. সৈয়দ আহসান কবীর
৪. জায়েদ খান
৫. আবু শাহাদাত মোঃ হাসনাইন পারভেজ
৬. মোঃ নুরুদ্দিন
৮. রাসেল আহমেদ সুপন
৮. মোঃ সাইদুল ইসলাম
৯. মোঃ আবুল কালাম
১০. শাকিল আহমেদ
১১. আখতারুজ্জামান শামীম
১২. মনিরুজ্জামান শাওন
১৩. রিয়াজ তালুকদার
১৪. আশিশ দাস
১৫. তুহিন মল্লিক
১৬. শাকিল সরোয়ার
১৭. স্বপন কুমার দে
১৮. নাকির আহমেদ
ক্রিকেটে মরনোত্তর  সম্মাননা
  ১. রাকিব আহমেদ সুজন
  ২. নাসির আহমেদ
ক্রিড়া ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা-
১.  কামাল হোসেন টিটু (ফুটবলার)
প্রিমিয়ার লীগ গোলকিপার শেখ জামাল
 ২.  লিংকন দে সঞ্জয়
জাতীয় ক্রিকেট লীগ বরিশাল
প্রিমিয়ার ডিভিশন লীগ শেখ জামাল

৩. জিন্নাত সূচনা (শ‍্যূটার)
গোল্ড মেডেলিস্ট জাতীয় যুব গেমস ২০১৮

৪. আদিব জিহান (ভাল উত্তোলক)
বাংলাদেশ পাওয়ার লিফটিং এ ৬৬ কেজি ক্যটাগরিতে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন।

 

ক্রিকেট  হকার্সের সকল সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রমে দুই দিনের দারুন এক পরিসমাপ্তি হয়েছে টুর্নামেন্টের। টুর্নামেন্টের ফাইনালে উন্নত  হন  ২০১৪ ও ২০১৮ ব্যাচ। দারুন প্রতিদ্বন্দিতা পূর্ণ ম্যাচে খেলা শেষ পর্যন্ত সুপার ওভারে গড়ায়। সুপার ওভারে ২০১৮ ব্যাচ জয়লাভ করে।