পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করলেন ফুটবল কিংবদন্তি গার্ড মুলার

0
308

ফুটবলের আরও একটি নক্ষত্রের পতন হল। ১৯৭৪ বিশ্বকাপের সর্বােচ্চ গোলদাতা, জার্মানির হয়ে বিশ্বকাপ ও ব্যালন ডি’অর জয়ী সর্বকালের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার গার্ড মুলার মারা গেছেন।

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকা কিংবদন্তি এই ফুটবলার এতদিন নিজ বাড়িতেই নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছিলেন। ৭৫ বছর বয়সে জার্মান সময় আজ সকালে মৃত্যুর সময় তিনি স্ত্রী ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ নিজেদের টুইটার পাতায় কিংবদন্তি এই ফুটবলারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

বিবৃতিতে ক্লাবটি জানায় ‘আজ বায়ার্ন মিউনিখ আর গোটা দুনিয়া স্তব্ধ হয়ে গেছে। জার্মানির কিংবদন্তি ফুটবলার রোববার সকালে ৭৫ বছর বয়সে মারা গেছেন। মুলার জার্মানির রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ আর জার্মান জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে বহু ইতিহাস গড়েছেন।’

বাভারিয়ান প্রেসিডেন্ট আজকের দিনটি বায়ার্ন সমর্থকদের জন্য কালো দিন বলে অভিহিত করে বলেন, “আজ বায়ার্নের সব সমর্থকদের জন্য শোকের দিন, কালো দিন। গার্ড মুলার ইতিহাসে সেরা স্ট্রাইকার এবং দারুণ একজন মানুষ, বিশ্ব ফুটবলের এক অসাধারণ ব্যক্তিত্ব।”

সর্বকালের সেরা গোলস্কোরার বলে অভিহিত গার্ড মুলার পেশাদার ক্যারিয়ারে বেশিরভাগ সময় খেলেছেন বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে। ১৯৪৫ সালের ৩ নভেম্বর পশ্চিম জার্মানিতে জন্ম নেওয়া মুলার আশির দশকে জার্মানির আরেক কিংবদন্তি ফুটবলার ফ্রাঞ্চ বেকেনবাওয়ার নিয়ে বায়ার্ন মিউনিখকে ইউরোপের শীর্ষ ক্লাবে আসীন করেন।

বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে ৬০৭টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে গোল করেছেব রেকর্ড ৫৬৬টি। জার্মান বুন্দেস লিগায় তাঁর গোলসংখ্যা রেকর্ড ৩৬৫টি। জার্মান লিগে সাতবারের সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি।

২০১২ সালে লিওনেল মেসি ছাড়িয়ে যাওয়ার আগে পর্যন্ত এক বর্ষপঞ্জিতে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডটি তার দখলে ছিল। ১৯৭২ সালে রেকর্ড গড়া মৌসুমে গোল করেছিলেন ৮৫টি। বুন্দেস লিগায় তার এক আসরে সবচেয়ে বেশি ৪০ গোলের রেকর্ডটি টিকে ছিল ৪৯ বছর। গত মে মাসে ওই রেকর্ড ভাঙেন পোলিশ তারকা রবার্ট লেওয়ান্ডস্কি।

জাতীয় দলের হয়েও সাফল্য পেয়েছেন দুহাত ভরে। ক্লাবের ন্যায় জার্মান জাতীয় দলের হয়েও সম্ভব্য সবকিছুই জিতেছেন। জার্মানির হয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিনি ৬২টি ম্যাচ খেলে গোল করেছেব সর্বাধিক ৬৮টি। ১৯৭৪ সালে বিশ্বকাপজয়ী জার্মান দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য মুলার ১৯৭২ সালে জার্মানির হয়ে জিতেছেন ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপও।

দুটি বিশ্বকাপ খেলে (১৯৭০ ও ১৯৭৪) তাঁর গোলসংখ্যা ১৪। চুয়াত্তরের বিশ্বকাপের ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ২-১ গোলে জিতে শিরোপা জিতেছিল জার্মানি। সে ম্যাচের জয়সূচক গোলটি ছিল তাঁর। ২০০৬ বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত তিনিই ছিলেন বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা। মুলার ১৯৭০ সালে জিতেছেন ব্যালন ডি’অর পুরস্কার। প্রবাদপ্রতিম ইতিহাস সেরা এই স্ট্রাইকারের মৃত্যুতে ফুটবলবিশ্বে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।