বাংলাদেশের পেশাদারিত্বে মুগ্ধ নিউজিল্যান্ড

0
497

দ্বিপাক্ষিক সিরিজ গুলো নিয়ে বেশ খুঁতখুঁতে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড, বিশেষ করে বাংলাদেশ সফরে আসা দলগুলোর একটু বেশিই নাক উঁচু থাকে। করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ সফরে এসে একের পর এক শর্ত দিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নাভিশ্বাস তুলে দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।

তবে বাংলাদেশে এসে প্রশংসায় ঝড়েছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের কণ্ঠে, বাংলাদেশ সফরে এসে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের ব্যাটার ফিন অ্যালেন। দুই ডোজের টিকা নিয়েও করোনা পজিটিভ আসা অ্যালেনের হালকা উপসর্গও আছে, তবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের আশা দ্রুতই নেগেটিভ হয়ে খেলার অনুমতি পাবে ফিন অ্যালেন।

৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে প্রায় ৮ বছর পর বাংলাদেশে এসেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল, আনুষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশে আসা দিনেই নিউজিল্যান্ড দল দুঃসংবাদ শুনেছে। দ্যা হান্ড্রেডে খেলা দুই ক্রিকেটার ফিন অ্যালেন ও কলিন ডি গ্র‍্যান্ডহোম গত ২০ আগস্ট বাংলাদেশে এসেছে, এরপর কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন এই দুই ক্রিকেটার।

বাংলাদেশে এসে প্রথম করোনা টেস্টে নেগেটিভই এসেছিল ফিন অ্যালেনের, এরপর শুরু হয় ৩ দিনের কোয়ারেন্টাইন। সেখানেই করোনা পজিটিভ এসেছে অ্যালেনের, নিজ দলের ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের ম্যানেজার মাইক স্যাডেল।
বিসিবির পেশাদারিত্বের প্রশংসা করে মাইক স্যাডেল বলেন, “সে (অ্যালেন) এখন ভালো আছে, আশা করি দ্রুত সুস্থ হয়ে যাবে। টেস্টে নেগেটিভ হয়ে দ্রুতই ছাড়া পাবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট চূড়ান্ত রকমের যে পেশাদারিত্ব দেখিয়েছে, তাতে আমরা তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। বিষয়টিকে তারা খুবই গুরুত্বসহকারে দেখছে।”

১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ, বাকি ম্যাচ গুলো অনুষ্ঠিত হবে ৩, ৫, ৮ ও ১০ সেপ্টেম্বর; সবগুলো ম্যাচ হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে।