বিশ্বকাপ সুপার লীগে আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ড মুখোমুখি হচ্ছে

0
1132

কয় এক মাস বিলম্বিত হলেও আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লীগের উদ্বোধন আগামী ৩০ জুলাই ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে হতে যাচ্ছে। এই সুপার লীগে মুখমুখি হতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড।

১৩ টি দলের সমন্বয়ে এটি আয়োজন হচ্ছে ওডিআইয়ের শীর্ষস্থানীয় ১২ দল এবং নেদারল্যান্ড এতে অংশগ্রহণ করবে। নেদারল্যান্ড আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট সুপার লিগ ২০১৫-১৭ জিতে এ যোগ্যতা অর্জন করে, লিগটি প্রতিটি দলকে চারটি হোম এবং চারটি এওয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে খেলবে। আগামি ২০২৩ অক্টোবর-নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্বকাপের আয়োজক ইন্ডিয়া ব্যতিত অপর শীর্ষ ৭ দল সরাসরি বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারবে।


প্রতিটি দল জয়ের জন্য দশ পয়েন্ট, টাইয়ের জন্য পাঁচ পয়েন্ট এবং ফলাফল না আসা অথবা বাতিল ম্যাচের জন্য কোন পয়েন্ট পাবে। সরাসরি উপরের তালিকায় থাকতে ব্যার্থ বাকি পাঁচ দল তাদের সহযোগী দল গুলোর মধ্যে   খেলবে এবং এখান থেকে দুইটি দল বিশ্বকাপে শীর্ষ দশে জায়গা পাবে।

আইসিসির ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০২৩-এর সব দলের অংশগ্রহণ এই লীগ সিষ্টেমের জন্য কিছুটা অনিশ্চয়তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার (ক্রিকেট অপারেশনস) জিওফ অ্যালার্ডিস এক বিবৃতিতে বলেছেন।, “সুপার লীগ ক্রিকেট নিয়ে সব আয়োজন প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথে বিশ্বজুড়ে ক্রিকেট ভক্তদের আরও বেশি আগ্রহ নিয়ে দেখার ইচ্ছে পোষণ করবে।”

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০২৩ সালে পিছিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আইসিসি করনা মহামারীতে স্থগিত হওয়ায় যে সব খেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ঐসব দলের জন্য আরো ম্যাচ আয়োজনের সুযোগ পাবে। পাশাপাশি কে যোগ্যতম দল তা নির্ধারণ হবে মাঠে।

আয়ারল্যান্ড ইতিমধ্যে ইংল্যান্ডে অবস্থান করছে, এবং তাদের প্রস্তুতি এখনও পর্যন্ত খুব একটা ভাল যায়নি। ২২ জুলাই নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচের পরে তারা ২৬ জুলাই ইংল্যান্ড লায়ন্সের কাছে সাত উইকেটে হেরে যায়। ম্যাচ দুটি, এজাস বেলে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং এই এক ভেন্যুতে পরবর্তী তিনটি ওয়ানডে আয়োজন হবে।