মানবতার সেবায় সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের নতুন উদ্যোগ

0
889

করোনার মহামারীতে প্রতিদিনই মৃত্যু হচ্ছে অসংখ্য মানুষের। দিন যাচ্ছে এবং মৃত্যু মিছিলে যোগ দিচ্ছে শতশত মানুষ। মৃত্যুর সাথে লড়াই করছে হাজার কোটি মানুষ। করোনা আক্রান্ত রোগীর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অক্সিজেন তার বেঁচে থাকা নির্ভর করে অক্সিজেনের উপর। ভারতে ডেল্টা ভেরিয়েন্ট ছড়িয়ে পরার পরে অক্সিজেনের সংকট প্রকট হয়ে দেখা দিয়েছে। মানুষ প্রচন্ড রকম অসহায় একটু খানি অক্সিজেনের অভাবে।

দুঃখ জনক হলেও এটাই সত্যি যে বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। ক্রমেই ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে এটি। স্বস্তির বিষয় হলো অক্সিজেন স্বল্পতা এখন ও তেমন দেখা যায়নি কিন্তু বলা যায় না পরিস্থিতি যেকোনো সময় খারাপ হতে পারে।

তাই এই মহামারিতে এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাড়িয়েছে অক্সিজেন। জরুরি প্রয়োজনে সেই অক্সিজেন বিনামূল্যে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দ্যা সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন। তারা জানিয়েছেন একটা ফোন করলেই জরুরি সেবা ভিত্তিতে পাওয়া যাবে অক্সিজেন সেবা, অ্যাম্বুলেন্স সেবা এবং দাফন সেবা। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছে ফাউন্ডেশনটি।

দ্যা সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের পেইজে গেলেই দেখা যাবে সেইখানে বলা হয়েছে ঃ

জরুরী ভিত্তিতে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা, এ্যাম্বুলেন্স সেবা, দাফন সেবা পেতে কল করুন। 018 333 44 074, কেউ অক্সিজেন, এ্যাম্বুলেন্স ও দাফন সেবা থেকে বাদ যাবে না।

সারাদেশেই পাওয়া যাবে দ্যা সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের এই সেবা গুলো, তবে তাদের সাথে যুক্ত হয়ে আরেকটি ফাউন্ডেশনও কাজ করবে ফাউন্ডেশনটির নাম মাস্তুল ফাউন্ডেশন। বিষয়টি সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার কিংবা সবাইকে জানিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

আরও বলা আছে নম্বরটি সংগ্রহ করে রাখার জন্য।

বিস্তারিত – ” আপনার একটি শেয়ারে একজন মানুষের জীবন বাঁচাতে পারে, নাম্বারটি সংগ্রহ করে রাখুন এবং শেয়ারের মাধ্যমে সকলকে সংগ্রহ করার সুযোগ করে দিন।সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন এবং মাস্তুল ফাউন্ডেশন যৌথ ভাবে কাজ করছে। ”

গত বছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হলে দেশের ক্রান্তিলগ্নে মানুষের পাশে দাড়াতে দ্যা সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন চালু করে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। যে ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সারাদেশে করোনা ইকুইপমেন্ট, খাদ্য সহ নানান প্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে বিভিন্ন সহায়তা নিয়ে মানুষের কাছে ছুটে গেছে।

তারা ছিলো মানুষের দুঃসময়ে তারা থাকবে মানুষের সুসময়ে এমনই প্রতিশ্রুতি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের।