রুমানা আহমেদ বাংলাদেশের একজন স্মার্ট ক্রিকেটার

0
1545

রুমানা বাংলাদেশ নারী দলের এই অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার তার জাতীয় দলের ওডিআই ক্যাপ নং হচ্ছে ৬ এবং টি-টুয়েন্টি ক্যাপ নং ৭। তিনি বাংলাদেশ দলের হয়ে ১০৩ বার আন্তর্জাতিক ম্যাচে টাইগ্রেসদের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ দলের সহ-অধিনায়কের ভূমিকা পালন করছেন।

তিনি কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার মিতালি রাজের এক বিশাল অনুরাগী, রুমানা আহমেদ ভারতীয় দ্বারা এতটাই অনুপ্রাণিত যে তিনি এই প্রাক্তনকে তার খেলার রোল মডেল মানেন।

রুমানা আহমেদ একজন নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান যিনি ব্যাটিং এর পাশাপাশি একজন কার্যকর লেগ স্পিনার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রবেশের পর থেকে রুমানা বাংলাদেশ দলের অন্যতম প্রধান ভূমিকা পালন করছেন। তিনি একজন জেনুইন অলরাউন্ডার এবং বর্তমানে বিশ্বের সেরাদের ক্রিকেটারদের মধ্যে একজন।

অধিনায়ক সালমা খাতুনের সাথে তিনি বর্তমানে বাংলাদেশের মহিলাদের হয়ে ওয়ানডেতে যৌথ ভাবে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ৭৫ ভাগ করছেন। তার এই ইনিংসটি ২০১৩ সালে ভারত সফরের সময়ের। সালমা খাতুনও ঐ একই সফরে ছিল এবং দুইজন একই ট্যুরে দেশের হয়ে এই কির্তী গড়েন। ২০০৮ সাল থেকে এই ক্রিকেট জুটি একে অপরকে খুব ভাল ভাবে চিনেন, তাদের নিজের শহর খুলনা ক্রিকেট দলের হয়ে তারা একসাথে খেলে বড় হয়েছেন।

তারা কেবল তাদের ঘরোয়া ক্রিকেটই একসাথে খেলেনি, তারা সেই সময় তাদের অভিষেক ও একসাথে হয়েছিল। রুমানা আহমেদ ২০১১ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক খেলায় তার আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়।

তিনি বর্তমানে ওয়ানডেতে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেটারদের মপক্ষ শীর্ষস্থানীয় রান স্কোরার। নয় বছর ধরে তিনি দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন এবং রেকর্ড ৮২৭ রান করেন।

ব্যাট হাতে যেমন তিনি কেতারদুরস্ত তেমনি বল হাতেও তিনি ঠিক সমান পারদর্শী। তিনি বাংলাদেশের মহিলাদের মধ্যে ওয়ানডেতে যৌথ ভাবে শীর্ষস্থানীয় উইকেট শিকারিদের মধ্যে একজন। ২০১৩ সালে ভারতের বিপক্ষে তিনি তাঁর সেরা ওয়ানডে বোলিং করেন, তাঁর বলিং ফিগার ৪-২০।

২০১৬ সালে, রুমানা আহমেদ বেলফাস্টে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক হ্যাটট্রি করেন, তাঁর বলিং ফিগারটি ছিল ৩-২০।

২০১৮ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে তিনি শীর্ষস্থানীয় উইকেট শিকারি হয়েছিলেন।এই অসাধারণ পারফরম্যান্স তাকে বাংলাদেশের প্রথম মহিলা এশিয়া কাপ জয়ের জন্য বাংলাদেশ স্কোয়াডে অন্তর্ভুক্তিতে সহায়তা করেছিল এবং পরবর্তীতে তিনি এশিয়া কাপ জয়ে দারুন ভূমিকা রাখেন।

২০১৯ সালে রুমানা আহমেদ আইসিসির উইমেন গ্লোবাল ডেভলপমেন্ট স্কোয়াডের অংশ হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিল যা মহিলাদের বিগ ব্যাশ স্কোয়াডের বিপরীতে ছয়টি ম্যাচ খেলেছিল।

তিনি অস্ট্রেলিও বিগব্যাশ দল হোবার্ট হারিকেনেসে যোগ দিতে গিয়েছিলেন যেখানে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের সাথে তিনি অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পেরেছিলেন।