সাকিবদের অধিনায়ক হতে হয় না নেতা সাকিব

0
528

দলের নেতা হতে হলে যে ঠিক অধিনায়কের বাহুবন্ধণীই পরতে হবে ব্যাপারটা ঠিক তেমন না সেটি প্রমাণ করেছেন সাকিব আল হাসান। প্রতিটি ম্যাচে বোলারদের সাথে বারবার কথা বলা, উজ্জীবিত করা, নিজের জায়গা থেকে এগিয়ে দেওয়ার কাজটা খুব ভালো ভাবে করতে পেরেছেন সাকিব আল হাসান।

অধিনায়ক না থেকেও বরং এই সাকিব দলের নেতা। মাহমুদউল্লাহ প্রেস কনফারেন্সে এসে কোন সংকোচ না করেই বলেছিলেন, “সাকিবের কাজ ছিল বোলারদের উৎসাহ দেওয়া৷” এই সাকিব পুরো দল নিয়ে যেভাবে ব্যস্ত থেকেছেন সেখান থেকেই উপলব্ধি।

এই সাকিবকে পেতে চাইবেন তামিমও, এইডা সাকিবকে পেতে চাইবেন মুমিনুল হকও। অধিনায়ক না হয়েও সাকিবের দলের সাথে এতোটা মিশে থাকা যে দেখা যায়নি এর আগে বহুদিন। সাকিব সত্যিকারের মত ফিরেছেন।

যখন আপনি দেখবেন কেউ খানিকটা অন্যায় করবার পরও তাকে নিয়ে মানুষ অনেক খুশি, তার পক্ষেই মানুষের সংখ্যাটা অনেক বেশি। তখন বুঝতে হবে তিনি অন্যায় করবার মত মানুষ না, তিনি অন্যায় করলেও অন্যায়ের পিছনে একটা ন্যায়ের স্তম্ভ দাড় করিয়ে রাখবেন।

মাত্র দুই মাসের ঘটনা, আজ থেকে ঠিক দুই মাস আগেই সাকিব আল হাসান শিরোনাম হয়েছিলেন নেতিবাচকভাবে। আম্পায়ারিং কান্ডে দেশের এবারের আলোচিত ক্রিকেট লিগ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলার মত ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেন সাকিব।

দেশের গন্ডি পেরিয়ে সাকিবকে নিয়ে নেতিবাচক সব সমালোচনা শুরু হয়েছিলো দেশের বাইরেও। তাতে কি যায় আসে! দেশের মানুষ তবুও বিশ্বাস রেখেছে সাকিবের উপরে। কারণ সাকিব প্রতিবাদ করেছিলেন। এদেশের মানুষ প্রতিবাদের ভাষা বড্ড ভালো পড়তে জানে, তারা কেন সাকিবকে ভুল বুঝবেন

তবে সাকিব উপলব্ধি করেছিলেন তিনি ভুল করেছিলেন। প্রতিবাদ করে তিনি ভুল করেননি, তার ভুলটা ছিল প্রতিবাদের ধরণে। নিজের করা পোস্টে সাকিব জানিয়েছিলেন তিনি দুঃখিত। সাকিব জানতেন তার উপর বিশ্বাস আছে সবার।

এই বিশ্বাস শুধু এখনই রাখা তা না, ২ বছর আগে যখন অনাকাঙ্ক্ষিত এক ভুলের কারনে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কবলে পরেছিলেন তখনও দেশের মানুষ চোখের পানি ঝরিয়েছিল। পুরো একটা বছর দিনগণনা করে অপেক্ষা করেছিল দেশবাসী।

সাকিব কত বড় ক্রিকেটার সেটা তিনি বারবার প্রমাণ করেছেন, আবারও করলেন। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়েছেন। এক ম্যাচে সাকিবসুলভ ফল না আসবার অভিযোগে সাকিব যেন সব রাগ উগড়ে দিলেন পরের ম্যাচেই। ফলাফল: ৬২ রানেই অলআউট অজিরা।

দেশের মানুষকে সাকিব মিনিটের মধ্যেই করতে পারেন দু’ভাগে, আবার চোখের পলকা ফেলতেই সাকিব এক করতে পারেন সবাইকে। ‘সাকিব সাকিব’ রবে শোর তুলতেই তখন ব্যস্ত থাকেন দেশের মানুষ। সাকিবই এমন।