“সৌরভ গাঙ্গুলি- প্রিন্স অব কলকাতা! “

0
1668

“ক্রিকেটের মক্কা” বলা হয় লর্ডসকে। লর্ডসে খেলতে নেমেছেন আর সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখেন নি এমন ব্যাটসম্যান ইহজগতে পাওয়া যাবে না। কেউ কেউ পেরেছেন, কেউ কেউ পারেন নি। গুটিকয়েক ব্যাটসম্যানের মধ্যে একজন তার ক্যারিয়ারের উশালগ্নেই দেখা পেয়েছিলেন সেই আরাধ্য শতকের! তাও আবার তার ক্যারিয়ারের প্রথম ইনিংসেই!

২০ জুন, ১৯৯৬!
লর্ডসের ময়দানে অভিষেকেই তিন নম্বরে নেমে এক বাঙালির ৩০১ বলে লড়াকু ১৩১ রানের ইনিংসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র করে ভারত। সেই বাঙালি হলেন সৌরভ চণ্ডীদাস গাঙ্গুলি!

২০০২, ন্যাটওয়েস্ট সিরিজ ফাইনাল!
মোহাম্মদ কাইফের জয়সূচক রানে চ্যাম্পিয়ন ভারত। ম্যাচের নায়ক কাইফকে ছাপিয়ে সবার নজর লর্ডসের বারান্দায়! ওখানে যে ভারতীয় দলপতি জয়ের উদযাপন করছেন। তাও আবার যেন তেন ভাবে নয়। জার্সি খুলে উড়ালেন, সাথে এন্ড্র ফ্লিনটফকে কড়া জবাব দিলেন। সেই অধিনায়ক কে জানেন?
-প্রিন্স অব কলকাতা!!
সেই থেকে ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ছবি হয়ে রইল লর্ডসের বারান্দার দাদার ছবি।

ভারতীয় ক্রিকেটের রূপরেখা বদলে দিয়েছেন তিনি। স্লেজিংয়ের জবাব দিতে শিখিয়েছিলেন স্লেজিংয়েই! তার বুদ্ধিদীপ্ত নেতৃত্ব গুনেই একটি ভঙ্গুর দল পরিনত হয় পরাশক্তিতে। তিনি জিততে জানতেন, জিতাতে জানতেন! পরাজয়ের গ্লানি তাকে দমাতে পারতোনা। প্রতিপক্ষের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে দলকে পথ দেখিয়েছেন বহুবার!! চোখে চোখ রেখে আঙ্গুল তুলে শাসিয়ে গেছেন লাহোর থেকে লর্ডস।তাঁর সূক্ষ্ম ক্রিকেট মস্তিষ্কের কারণে টিকে গিয়েছিল সেওয়াগ,যুবরাজ,নেহেরা­,লক্ষ্মণ, হরভজন ও ধোনির মত ক্রিকেটারদের ক্যারিয়ার। হার মানতে চাইতেন না কখনোই, উল্টো নিজের রাজত্ব প্রতিষ্ঠায় মত্ত থাকতেন সর্বক্ষণ। টসে দেরি করে আসা ছিল তার ক্যাপ্টেন্সির স্ট্রাটেজি! টসের সময় সৌরভের জন্য অপেক্ষা করেন নি এমন অধিনায়ক বোধহয় পৃথিবীতে নেই। বিশ্বক্রিকেটের একজন জীবন্ত কিংবদন্তী তিনি। প্রিন্স অফ কলকাতা নামে পরিচিত সৌরভ বাংলার ক্রিকেটকে বিশ্বস্তরের সর্বোচ্চ মর্যাদা দিয়েছিলেন। শিখিয়েছিলেন কিভাবে বিদেশের মাটিতে লড়াই করে জিততে হয়। দেখিয়েছিলেন কিভাবে প্রতিপক্ষ দলের চোখে রেখে বদলা নিতে হয়।

১১৩ টেস্ট খেলে তিনি করেছেন ৭২১২ রান এবং ৩১১ ওয়ানডেতে রান করেছেন ১১৩৬৩। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩৮ টি সেঞ্চুরির পাশাপাশি ১১০ টি হাফসেঞ্চুরির মালিক দাদা।
একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে টানা চার ওডিআইতে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন।

১৯৭২ সালের আজকের দিনে বেহালায় জন্মগ্রহণ করেন সৌরভ গাঙ্গুলি। ক্রিকেট ছাড়ার পর সৌরভ হয়ে গেছেন পুরোদস্তুর একজন সংগঠক। ছিলেন সিএবি এর সভাপতি। ইন্ডিয়ান সুপার লীগে আতলেতিকো কলকাতা ( এটিকে) দল চালাতেন। বর্তমানে তিনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই এর সভাপতি। দৌড়ে আছেন আইসিসি সভাপতির। শুভ জন্মদিন দাদা। ভবিষ্যতের জন্য শুভ কামনা।