হাঁটু গেড়ে উভয় দলের খেলোয়াড় ও অফিসিয়ালদের প্রতিবাদ

0
1542

ইংল্যান্ড ও ওয়েষ্ট-ইন্ডিজের মধ্যে আজ থেকে শুরু হয়েছে প্রথম টেস্ট এই টেষ্টের শুরুতেই উভয় দলের খেলোয়াড় ও অফিসিয়ালরা #blacl_life_matter (ব্লাক লাইফ ম্যাটার) মুভমেন্টের অংশ হিসেবে বিশেষ অঙ্গ ভঙ্গিতে প্রতিবাদ জানিয়েছন।

উভয় দলের খেলোয়াড় সাপোর্ট স্টাফ আম্পায়ার এক হাঁটু গেড়ে বসে ছিলেন এবং ওয়েষ্ট-ইন্ডিজ এর খেলোয়াড়রা ডান হাতে কালো দস্তানা পরে মুষ্ঠিবদ্ধ করে উঁচু করে রেখে ছিলেন।

বৃষ্টির কারণে সাউদাম্পটনে খেলা শুরু হতে ৩ ঘন্টা বিলম্ব হয়, দুপুর ২ টা অবধি অপেক্ষা করতে হয়। উভয় দলই কোভিড-১৯ মহামারীতে যারা প্রান হারিয়েছেন এবং স্যার এভারটন উইকস যিনি ১লা জুলাই ৯৫ বছর বয়সে মারা যান তাদের সন্মানে পিচের চারপাশে একটি অর্ধ-বৃত্তাকারে দাঁড়িয়ে এক মিনিটের নীরবতা পালন করেন।

এর পরপরই, আম্পায়ার রিচার্ড কেটলবরো এবং রিচার্ড ইলিংওয়ার্থের সাথে খেলোয়াড়রা তাদের অবস্থান নেয় এবং তারা সবাই এক হাঁটুতে বসে পরেন, ফিল্ডিংয়ের ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়রা তাদের কালো দস্তানা পরিহিত হাত উঁচু করে তুলে ধরেন। ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যান ররি বার্নস এবং ডম সিবিলি ক্রিজে হাঁটু গেড়ে বসে পরেন এবং ইংল্যান্ডের বাকি খেলোয়াড়রা ও সাপোর্ট স্টাফরা বাউন্ডারির লাইনে হাঁটু গেড়ে বসে পরে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

উভয় দল আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপলিসে ২৫ শে মে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পরে ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলনের সমর্থনে একটি বিশেষ অঙ্গভঙ্গি করার কথা বলেছিলেন। ফ্লোয়েড নামের একজন ৪৬ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি, একজন শেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা দ্বারা হাতকড়া বাঁধা অবস্থায় সাত মিনিটেরও বেশি সময় ধরে গলায় হাঁটু চেপে ধরে তাকে আটকে রাখার পরে মারা যায়।

কলিন কেপার্নিক তিনি একজন প্রাক্তন ন্যাশনাল ফুটবল লীগ খেলোয়াড় এনএফএল (ন্যাশনাল ফুটবল লীগ) চলাকালীন জাতীয় সংগীত পরিবেশনের সময় হাঁটু গেড়ে বসে ছিলেন পুলিশের বর্ণবাদী আচরণের ও আগ্রাসনের প্রতিবাদে। তাঁর এই প্রতিবাদের ধরন অনুসরণ করে পরবর্তীতে বহু বিক্ষোভকারী একই ভঙ্গিমায় প্রতিবাদ করে।