হারলেই শুধু তরুণদের নিয়ে সমালোচনার বিপক্ষে বিসিবি সভাপতি

0
465

নাজমুল হাসান পাপনের প্রত্যাশা তরুণদের পারফর্মেন্স নিয়েও আলোচনা হবে।অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টানা দুই ম্যাচ জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। প্রথম দুই টি-টোয়েন্টিতেই জয় এসেছে দলগত পারফর্মেন্স এর কল্যাণে। বোলাররা সবাই ভালো করেছে, ব্যাটাররাও দায়িত্ব নিয়ে ছোট ছোট কিন্তু কার্যকর ইনিংসে জয় এনে দিয়েছেন।

বাংলাদেশ দল একক নৈপুণ্যে আগেও জয় পেয়েছে, তবে ধারাবাহিক ভাবে জিততে হলে দু-একজনের চেয়ে দলগত নৈপুণ্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে সেটাই করে দেখিয়েছে বাংলাদেশ দল,তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাসদের অনুপস্থিতিতে একটা দল হয়েই সাফল্য পাচ্ছে টাইগাররা।

সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতিতে তরুণরা নিজেদের প্রমাণের সুযোগ পাচ্ছে, সেটাতে তারা সাফল্যও পাচ্ছে। কিন্তু যে ম্যাচ গুলোতে সিনিয়র ক্রিকেটাররা ভালো পারফর্মেন্স করে দলকে জেতান সেই ম্যাচ গুলোতে তরুণ ক্রিকেটারদের পারফর্মেন্স নিয়ে খুব একটা আলোচনা হয় না। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের প্রত্যাশা তরুণদের পারফর্মেন্স নিয়েও আলোচনা হবে।

শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পুরষ্কার অনুষ্ঠানে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, “একটা সময় ছিল যখন নাকি একজন ক্রিকেটার একটা টিমকে জিতিয়ে দিতে পারতো। কিন্তু এখনকার ক্রিকেট এতই কম্পিটিটিভ, এখন কিন্তু একজন দুইজনে হয় না, দলগত প্রচেষ্টা লাগে।”

তিনি আরও বলেন, “আমাদের সমস্যাটা হচ্ছে যে অনেক সময় আমরা দেখেছি বেশিরভাগ সময়ে আমাদের যারা অভিজ্ঞ প্লেয়ার আছে বেশিরভাগ সময়ে তারাই ভাল পারফম করে। এবং ম্যাচ জিতে গেলে ওরা বাদে আর কে কি করলো সেটা নিয়ে আমরা মাথা ঘামাই না। কিন্তু যখন হেরে যা্য় তখন ওরা পারফর্ম করে অন্যরা পারফর্ম করেনি , নতুন যারা তুলনামুলক তরুন তখন এদের নিয়ে আমরা হুলুস্থুল করি।”

স্পিনারদের রান আটকানোর পাশাপাশি উইকেট তুলে নেওয়া, পেসারদের দুর্দান্ত বোলিং পারফর্মেন্স ও ব্যাটারদের ছোট ছোট নৈপুণ্যে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ২৩ রানের দুর্দান্ত জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও ৫ উইকেটের জয়ে ৫ ম্যাচের সিরিজে ২-০ এগিয়ে আছে বাংলাদেশ।

সিরিজের শেষ ৩ ম্যাচ ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট।