হঠাৎ রদবদল; স্প্যানিশ অস্কারের হাতে দায়িত্ব

26
90

সাফ চ্যাম্পিয়নসশিপের দুই সপ্তাহ আগে রদবদল হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান কোচের দায়িত্বে। ব্রিটিশ জেমি ডে’কে ছুটিতে পাঠিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে স্প্যানিশ অস্কার ব্রুজনকে। দীর্ঘ দিন জেমির অধীনে খেলার পর সাফের আগে অস্কারের খেলার ধরণের সাথে ফুটবলাররা মানিয়ে নিতে পারবে কিনা জন্ম হয়েছে এমন প্রশ্নের।

২০১৮ সালের মে মাসে বাংলাদেশের দায়িত্ব নেন ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে। বাংলাদেশের দায়িত্ব পালনে ইতমধ্যে তিন বছর পার করেছেন এই কোচ। কিন্তু এই সময়ে আসেনি তেমন কোন সাফল্য। এছাড়া সাম্প্রতিক পার্ফরমেন্সও হতাশায় ভরা। যে কারনেই জেমি ডে’কে দুই মাসের ছুটি দিয়ে নতুন কাউকে পরখ করে দেখতে চায় ফুটবল ফেডারেশন।

জেমি ডের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ দলের দেখ ভাল করবেন বসুন্ধরা কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজন। সাফের আগে এত অল্প সময়ের মধ্যে জেমির ট্যাক্টিস ছেড়ে অস্কারের ট্যাক্টিসে ফুটবলাররা কতটুকু মানিয়ে নিতে পারবেন সেই প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

এ মৌসুমে উত্তর বারিধারার হয়ে দশ গোল করেছেন সুমন রেজা। জাতীয় দলের শেষ ম্যাচেও জোড়া গোল করেছেন এই স্ট্রাইকার। হঠাৎ করে জেমি ডে’কে পরিবর্তন করা হবে এটা তার ভাবনাতেই ছিল না।

“আমি ভাবি নাই যে সাফের আগেই জেমি চেঞ্জ হয়ে যাবে। আসলে এরকম সিদ্ধান্ত আরো আগে বা সাফের পর নেওয়া উচিত ছিল। এখন যেহেতু সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে সেহেতু মেনে নিতে হবে।”

“আমি মনে করি অস্কার এমন কোন ট্যাক্টিস চাপিয়ে দিবে না যেটা আমরা নিতে পারব না। যেহেতু অস্কার বেশ কয়েক বছর বাংলাদেশে আছে, সে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের ভাল করে জানে আর তার অধীনেই জাতীয় দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড় খেলে থাকে। ”তবুও সাফে নিজেদের সেরাটা দেয়ার কথা জানালেন সুমন রেজা।

সদ্য সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে বিদায় জানিয়েছেন ডিফেন্ডার রহমত মিয়া। তার মতে সাফের আগে অস্কারের খেলার ধরণ বুঝতে জাতীয় দলে খেলা বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলারদের জন্য ভাল হলেও বাইরের খেলোয়াড়দের জন্য কিছুটা কঠিন হবে।

“একটা টুর্নামেন্টের আগে হঠাত এভাবে পরিবর্তন করলে মানিয়ে নেওয়া কঠিন হওয়াটাই স্বাভাবিক। বসুন্ধরা কিংসের যে কয়জন জাতীয় দলে খেলে তাদের জন্য ভাল হলেও এর বাইরের খেলোয়াড়দের জন্য অস্কার ব্রুজনের ট্যাক্টিস এই অল্প কয়েক দিনে মানিয়ে নেওয়া কিছুটা কঠিন হবে। জেমির খেলার ধরণ,দর্শন আর অস্কার ব্রুজনের টা অবশ্যই আলাদা হবে।”

এদিকে দুই মৌসুম ধরে অস্কার ব্রুজনের অধীণে বসুন্ধরা কিংসে খেলছেন বিশ্বনাথ ঘোষ। এর পাশাপাশি জেমি ডের অধীণে জাতীয় দলেও খেলেছেন এই রাইট ব্যাক। দুই কোচের অধীনে খেলে বুঝতে পেরেছেন দুজন দুই ভাবে খেলিয়ে থাকেন।

“অস্কার টিকিটাকা পছন্দ করে। আর জেমি বল ধরে ধরে উইং ধরে খেলাতে পছন্দ করে। দুইজনের দুই রকম ট্যাক্টিস।”

“ঘরোয়া লিগে অধিকাংশ সময় অস্কারের ব্রজনের অধীনে এটাকিং খেলা হয়। আর জাতীয় দলে অধিকাংশ সময় র‍্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকা দল গুলার সাথে ডিফেন্ডিং এ নজর দিতে হয়। কেননা ক্লাবে চার বিদেশি থাকে, কোচ সেভাবে পরিকল্পনা সাজান কিন্তু জাতীয় দলে তো আর বিদেশি থাকে না তাই প্রেসার একটু বেশিই থাকে।”

আগামী ১ থেকে ১৬ই অক্টোবর মালদ্বীপে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ অনুষ্ঠিত হবে।

26 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here